Three Russian’s Death in Odisha: কয়েকদিনের ব্যবধানে ওড়িশায় মৃত্যু তিন রাশিয়ানের, কী বলছে বিদেশ মন্ত্রক?

কয়েকদিনের ব্যবধানে এক আইনপ্রণেতা সহ মোট তিনজন রাশিয়ানের মৃত্যু ঘটেছে ওড়িশায়। এই নিয়ে এবার মুখ খুলল ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। বহস্পতিবার ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি ওড়িশায় তৃতীয় রুশ নাগরিকের মৃত্যুর কথা স্বীকার করে নেন। তবে তিনি বলেন, ‘এই তিনটি মৃত্যুকে এক সূত্রে গাঁথা উচিৎ নয়।’ তাঁর কথায়, ভারতে বহু বিদেশি নাগরিক ঘুরতে আসেন। তাঁদের মধ্যে অনেকেই রুশ নাগরিক। তাঁর কথায়, ‘দুই রুশ নাগরিকের মৃত্যুর তদন্ত ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে। এখন আমরা তৃতীয় এক রুশ নাগরিকের মৃত্যুকর খবর পেয়েছি। তিনি নাবিক। তবে তাঁর মৃত্যু আন্তর্জাতিক জলসীমায় হয়েছে। তাঁর দেহ পারাদ্বীপ বন্দরে নিয়ে আসা হয়েছে। এই তিনটি মৃত্যুর ঘটনাকে আমি এক সূত্রে গাঁথতে ইচ্ছুক নই।’ (আরও পড়ুন: সহযাত্রীর গায়ে মত্ত ব্যক্তির টয়লেট করার পিছনে বিমানকর্মীদের ‘দোষ’ দেখছেন জেট CEO)

 

ওড়িশায় পরপর রুশ নাগরিকদের মৃত্যু

সম্প্রতি ওড়িশার রায়গড় জেলার এক হোটেলে মৃত্যু হয়েছে রুশ রাজনীতিবিদ পাভেল আন্তভ। পুতিন বিরোধী হিসেবে পরিচিত এই রুশ আইনপ্রণেতার মৃত্যু ঘিরে রহস্য তৈরি হয়েছিল। প্রাথমিক ভাবে পুলিশের তরফে দাবি করা হয়েছে যে পাভেলের মৃত্যুর নেপথ্যে ‘আন্য কারও’ হাত নেই। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়, পাভেলের শরীরে থাকা বেশ কিছু চোট মৃত্যুর আগের। অবশ্য পাভেলের ময়নাতদন্তে মৃত্যুর সম্ভাব্য কারণ হিসেবে ‘দুর্ঘটনা’র উল্লেখ রয়েছে। ময়নাতদন্ত অনুযায়ী, পাভেলের বাঁদিকের ফুসফুস এবং লিভারে ব়্যাপচার হয়েছে। এদিকে পাভেলের মৃত্যুর কয়েকদিন আগেই তাঁর সফরসঙ্গী ভ্লাদিমির বিদেনভ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছিলেন। আর পাভেলের মৃত্যুর ১০ দিন পরই ফের ওড়িশার মাটিতে আরও এক রুশ নাগরিকের মৃতদেহ এসে পৌঁছল।

 

কী ঘটেছিল?

জানা গিয়েছে, দিল্লির এক ট্রাভেল এজেন্টের ১৪ দিনের প্যাকেজে রায়গড় ঘুরতে গিয়েছিলেন পাভেল। তাঁর সঙ্গে ভ্লাদিমির বিদেনভ এবং এক দম্পতি ছিল – মিখাল তুরোভ, নাতালিয়া পানেশেঙ্কো। পুলিশ মঙ্গলবার বলেছে, বিদেনভের মৃত্যুর পর সম্ভবত নিজেই জানলা দিয়ে লাফিয়েছিলেন পাভেল। ২৪ ডিসেম্বর পাভেলের মৃত্যুর পর ২৬ ডিসেম্বর তাঁর দেহের ময়নাদতন্ত হয় রায়গড় জেলা হাসপাতালে। তাঁর বাঁদিকের পাঁজরের হাড় ভাঙা বলে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়। শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে রক্ত জমাট বেঁধেছিল তাঁর। এদিকে এই চোটগুলির বেশ কয়েকটি মৃত্যুর আগের হয়ে থাকতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে বলা হয়েছে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে। এই আবহে পাভেল আন্তভের মৃত্যুর তদন্তে ইন্টারপোলের সাহায্য নিতে পারে ওড়িশা সিআইডি। আর এরপরই গত মঙ্গলবার জগৎসিংহপুর জেলার পারাদ্বীপ বন্দরে জাহাজের মধ্যে থেকে এক রুশ নাবিকের দেহ উদ্ধার হয়। মৃত রুশ নাগরিকের নাম মিলিয়াকভ সের্গেই। তাঁর বয়স ৫০ বছর। জাহাজটি বাংলাদেশ থেকে মুম্বই যাচ্ছিল। এই মৃত্যুর কারণ নিয়ে ধন্দ তৈরি হয়েছে।

Read also  Russian Missile: আন্তঃদেশীয় মিসাইল নিয়ে তৈরি হচ্ছে রাশিয়া? ইউক্রেনকে বাইডেনের প্রতিশ্রুতির পরই কোন ছবি!

 

 

 

Source link