Monuments goes Missing: সরকারি সুরক্ষায় থাকা দেশের ৫০ টি সৌধ ‘নিখোঁজ’! কী ঘটেছে? জানাল কেন্দ্র

ভারতের ৩৬৯৩ টি সৌধের মধ্যে ৫০ টি সৌধকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এই তিন হাজারের ওপর সৌধ বর্তমানে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের নিরাপত্তার অধীনে থাকে। সংসদীয় কমিটির কাছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রকের তরফে একথা জানানো হয়েছে।

 ডিসেম্বরের ৮ তারিখে সংসদীয় কমিটির কাছে দেওয়া এক রিপোর্টে কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে ‘এটা খুবই উদ্বেগের বিষয় যে জাতীয় গুরুত্বপ্রাপ্ত সৌধগুলি যা আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার নিরাপত্তার ঘেরাটোপে রয়েছে, সেগুলির খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না বহু বছর ধরে।’ সেই রিপোর্টে জানানো হয়েছে, ‘সেগুলি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না দ্রুত নগরায়নের জেরে।’ উল্লেখ্য, কিছু সৌধ গভীর জঙ্গলে রয়েছে, কোথাও বাঁধের নিচে তাপা পড়ে গিয়েছে, কোথাও আবার প্রান্তিক এলাকায় সেগুলি অবস্থিত বলে তার খোঁজ মিলছে না। ওই যাবতীয় তথ্য সংসদে পেশ করেছে কেন্দ্র। উল্লেখ্য, সড়ক, পরিবহন ও সংস্কৃতিবিষয়ক সংসদীয় কমিটির কাছে এই তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। এবিষয়ে দেশের সংস্কৃতি বিষয়ক সচিব, এএসআইয়ের জেনারেলের তরফে তাঁদের বক্তব্যও শুনেছে কমিটি। 

প্রসঙ্গত, যে সৌধগুলি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না তারমধ্যে ১১ টি উত্তর প্রদেশের। একটি দিল্লি ও হরিয়ানার। এছাড়াও অসম, পশ্চিমবঙ্গ, অরুণাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ডে এই এই সৌধগুলি রয়েছে। এএসআইয়ের রিপোর্ট বলছে, ১৪ টি সৌধ শুধুমাত্র হারিয়ে গিয়েছে দ্রুত নগরায়ণের জন্য। ১২ টি বাঁধের নিচে ডুবে রয়েছে। ২৪ টি সৌধকে খুঁজেই পাওয়া যাচ্ছে না তাদের অবস্থান অনুযায়ী। উল্লেখ্য, বলা হচ্ছে সঠিক ঠিকানা অনুযায়ী সেই এলাকায় গিয়ে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না ওই সৌধগুলিকে। বহু সৌধ ভেঙে গিয়েছে বলেও অনুমান। এএসআই জানান্ছে স্বাধীনতার পরও বহু সৌধ খুঁজে পাওয়া গিয়েছে ১৯৩০, ১৯৪০,১৯৫০ এর সময়কালেও নতুন করে খোংজ মিলেছে বহু সৌধের।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৩ সালে দেশের কম্প্ট্রোলার অ্য়ান্ড অডিটর জেনারেলের রিপোর্ট বলেছে, সেই সময় থেকে দেশের ৯২ টি সৌধ ‘নিখোঁজ’ ছিল। সেই সময়ই প্রথমবার সরেজমিনে নেমে ওই সৌধের খোঁজ করা হয়েছিল। এরপর ২০২২ সালে নতুন রিপোর্ট ঘিরে রীতিমতো তোলপাড় শুরু হয়েছে। 

Read also  Multibagger stock: মাত্র ১২ মাসেই ১ লাখ টাকা বেড়ে ২২ লাখ! জানুন কোন শেয়ারে

 

 

 

 

 

 

Source link