Delhi Accident: দিল্লির ভয়াবহ দুর্ঘটনায় রিপোর্ট তলব অমিত শাহের,দিলেন বড় নির্দেশ

নতুন বছরের প্রথম দিনে দিল্লিতে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। এবার সেই দুর্ঘটনা নিয়ে পুলিশের কাছে রিপোর্ট চাইলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। রাজধানীতে এই দুর্ঘটনায় ২০ বছর বয়সী এক মহিলার মৃত্যু হয়েছিল। মৃতের নাম অঞ্জলি সিং। শনিবার মাঝরাতে ওই মহিলাকে একটি গাড়ি ধাক্কা দেয়। এরপর প্রায় কয়েক কিমি তাকে টেনে নিয়ে যায় গাড়িটি। ওই গাড়িতে মোট ৫জন ছিল। পরে ওই পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের তিনদিনের পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে গোটা ঘটনায় হস্তক্ষেপ করেছেন খোদ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি দিল্লি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন, দ্রুত পদক্ষেপ করুন। নির্ভয়ে কাজ করুন।

এদিকে সোমবার দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে , ওই দুর্ঘটনায় মৃত্যুর ঘটনায় দেহের ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এদিকে তিনজন চিকিৎসকের প্যানেল মৌলানা আজাদ কলেজে দেহের ময়নাতদন্ত করেছে। দ্রুত এই রিপোর্ট আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনার পরে ওই তরুণী মারাত্মকভাবে জখম হয়েছিলেন। তার জামাকাপড় ছিঁড়ে যায়। তার পিঠের চামড়া উঠে যায়।

এরপর এসজিএম হাসপাতালে ওই তরুণীর দেহ নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

এদিকে দিল্লির ওই ঘটনাকে ঘিরে গোটা দেশজুড়েই চরম শোরগোল পড়ে গিয়েছে। নিন্দার ঝড় উঠেছে এলাকায়। ঠিক কী হয়েছিল রবিবার ভোরে?

সূত্রের খবর, একটি স্কুটার নিয়ে যাচ্ছিলেন ওই তরুণী। সেই সময় পিছন থেকে একটি গাড়ি ধাক্কা মারে তাঁকে। এরপর, তরুণীর পা গাড়ির নীচে আটকে যায়। কিন্তু তারপরেও ওই ঘাতক গাড়িটি থামেনি। সেই অবস্থাতেই গাড়িটি কয়েক কিলোমিটার চলতে থাকে। কাঞ্ঝাওয়ালা এলাকায় তরুণীর দেহটি গাড়িটি থেকে আলাদা হয়। এদিকে ভোর ৩টে বেজে ২৪ মিনিটে পুলিশ কন্ট্রোল রুমে ফোন করে একজন জানান যে একটি গাড়ি তরুণীকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে। পরে ভোর ৪টে ১১ মিনিটে আরও একটি ফোন আসে। সেই সময় বলা হয়, রাস্তায় তরুণীর নগ্ন দেহ দেখতে পাওয়া গিয়েছে। এই ঘটনার পর রবিবার দিল্লি পুলিশ ঘাতক গাড়িটি সনাক্ত করে।

Read also  ভারত মহাসাগরের ফোরামে ১৯টি দেশকে জড়ো করেছে চিন, বাদ পড়েছে শুধু ভারত

এদিকে অভিযুক্তরা পরে দাবি করে, তারা নাকি বুঝতে পারেনি যে তাদের গাড়ির নীচে তরুণীর দেহ আটকে গিয়েছে। তবে মৃত তরুণীর মা রেখার দাবি, তাঁর মেয়েকে যৌন হেনস্তা করা হয়েছে। এদিকে ঘটনার সিসি ফুটেজও সামনে এসেছে। তা নিঃসন্দেহে শিউরে ওঠার মতো।

 

Source link