Cooking Gas: প্লাস্টিকের বেলুনে গ্যাস ভরে রান্না পাকিস্তানে, ঠিক যেন চলমান বোমা

এমনটাও হয়! সেই আজব ঘটনাই এবার পাকিস্তানে। অর্থনৈতিক অবস্থা এমন জায়গাতই গিয়েছে যে পাকিস্তানের নাগরিক গ্যাস ভরার জন্য় প্লাস্টিকের প্যাকেট ব্য়বহার করছেন। সিলিন্ডার কেনার মতো আর্থিক অবস্থাও নেই। আসলে গ্যাস সিলিন্ডারের ভয়াবহ আকাল পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনওয়া এলাকায়। সেকারণে সেখানকার বাসিন্দারা সিলিন্ডারের বদলে প্লাস্টিকের প্যাকেট ব্যবহার করা শুরু করেছেন।

রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে করক জেলায় ২০০৭ সাল থেকে বাসিন্দাদের গ্যাসের কানেকশন নেই। হাঙ্গু শহরেও গ্যাসের আকাল। কানেকশনের যে লাইন ছিল সেটা আগেই বিকল হয়ে গিয়েছে। তারপর আর সেটি সারানো হয়নি। এরপর থেকেই গ্যাসের ভয়াবহ আকাল।

কীভাবে গ্যাস ভরা হচ্ছে?

একটি কম্প্রেসরের সাহায্যে প্লাস্টিকের ব্যাগে গ্যাস ভরা হচ্ছে। এরপর নজল দিয়ে সেটি আটকে দেওয়া হয়েছে। ভাল্ভ দিয়েও আটকে দেওয়া হচ্ছে মুখটা। প্লাস্টিকের ব্যাগে তিন থেকে চার কেজি গ্যাস ভরতেই সময় লাগছে ১ ঘণ্টা।

তবে সবথেকে আশ্চর্যের বিষয় এই খাইবার পাখতুনখাওয়া এলাকা থেকেই প্রায় ৮৫ ব্যারেল তেল আর ৬৪.৯৬৭ মিলিয়ন কিউবিক ফুট গ্য়াস ২০২০ সালে পাওয়া গিয়েছে। আর সেখানেই প্লাস্টিকের প্যাকেটে গ্যাস বিক্রি হচ্ছে। পাকিস্তানি রুপিতে বাণিজ্যিক গ্যাস সিলিন্ডারের দাম ১০,০০০ পাকিস্তানি রুপি। আর প্লাস্টিকের প্যাকেটে গ্যাসের দাম ৫০০-৯০০ টাকা।

এদিকে এভাবে গ্যাস ভরে নিয়ে গেলে বিপদ হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে। কার্যত মুভিং বোম্ব হিসাবেও বলা যায় এটাকে। এই গ্যাসে বিস্ফোরণের জেরে কমপক্ষে ৮জনের জখমের খবরও মিলেছে পাকিস্তানে। তারপরেও এই প্রবনতা কমছে না।

তবে গ্য়াস সিলিন্ডারেও বিস্ফোরণের আশঙ্কা থাকে। সেজায়গায় প্লাস্টিকের ব্যাগে গ্যাস ভরা থাকায়. সেই সম্ভাবনা আরও বাড়ছে।

সম্প্রতি গ্য়াস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ভারতে ভয়াবহ ঘটনা হয়েছিল। রাজস্থানের যোধপুর জেলার একটি বাড়িতে রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দুই শিশুসহ পাঁচজন মারা গিয়েছিল। ঘটনায় প্রায় ৫০ জন আহত হয়েছিলেন। একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে জন্য অনেকে জড়ো হয়েছিলেন সেই বাড়িতে। সেই সময় এই দুর্ঘটনা ঘটে। যোধপুরের বিভাগীয় কমিশনার কৈলাশ চাঁদ মীনা শুক্রবার জানিয়েছিলেন, ঘটনাটি ঘটেছে শেরগড় তহসিলের (যোধপুর থেকে ১১০ কিলোমিটার দূরে) ভুংরা গ্রামে।বিস্ফোরণের প্রভাবে বাড়িটি ধসে পড়ে।

Read also  বারাণসী থেকে অসম যাবে বিশ্বের দীর্ঘতম নদী ক্রুজ! উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

যোধপুরের বিভাগীয় কমিশনার জানিয়েছিলেন, এ ঘটনায় দুই শিশুসহ পাঁচজন মারা গিয়েছেন এবং প্রায় ৫০ জন আহত হয়েছেন।

তবে পাকিস্তানে তো একেবারে চলমান বোমা।

 

Source link