ঘুমের মধ্যে দমবন্ধ হয়ে মৃত্য়ু একই পরিবারের তিনজনের, কারণ জানলে শিউরে উঠবেন

বাড়ির ঘরে আগুন লেগে গিয়েছিল। ঘরের মধ্যে কালো ধোঁয়ায় ভরে গিয়েছিল। আর সেই ধোঁয়াতেই দমবন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে একই পরিবারের তিনজন। আমেদাবাদের ঘটনা। পুলিশ জানিয়েছে, সকাল ৪টে থেকে ৫টার মধ্যে ঘটনাটি হয়েছিল বলে মনে করা হচ্ছে। পরিবারের সকলেই তখন ঘুমোচ্ছিলেন। সেই সময় ঘরে কোনওভাবে আগুন ধরে যায়।

এদিকে প্রতিবেশীদের সঙ্গেও কথা বলেছেন পুলিশ আধিকারিকরা। তাঁরা জানিয়েছেন ওই বাড়়ি থেকে কোনও চিৎকার তারা শোনেননি। সেক্ষেত্রে মনে করা হচ্ছে, দমবন্ধ হয়ে তাদের মৃত্যু হয়েছে। হয়তো ঘুমের মধ্যে দমবন্ধ অবস্থায় মৃত্যু হয় তাদের। তারা কাউকে ডাকারও সুযোগ পাননি।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে খবর, ভোরবেলা ওই বাড়ি থেকে আগুনের শিখা দেখতে পাওয়া যায়। এরপর দমকলে খবর দেওয়া হয়। দমকল দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। এদিকে দমকল এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নেভানো হয়। এদিকে দমকল বাহিনী দেখে দেহগুলি একেবারে ঝলসে গিয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, নিউ এজ কলোনি এলাকায় একটি আবাসনে এই ঘটনা হয়েছে। মৃতদের নাম জয়েশ বাঘেলা (৩৮), তার স্ত্রী হানসাবেন বাঘেলা (৩০) ও ৭ বছর বয়সী তাদের সন্তান রেয়াংস। জয়েশ বাঘেলা নামে ওই ব্যক্তি আমেদাবাদ পুরসভায় সাফাই কর্মচারী হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

মধুপুর থানার পিএসই খুন্ত জানিয়েছেন, সম্ভবত ইলেকট্রিকাল সর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগে গিয়েছিল। তবে আগুন লাগার প্রকৃত কারণ এখনও পরিষ্কার নয়। তিনি জানিয়েছেন, দমকল বাহিনী পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কলোনির অন্যত্র যাতে আগুন না ছড়ায় সেটা নিশ্চিত করা হয়।

এদিকে গোটা ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একই পরিবারের তিনজনের এভাবে ঘুমের মধ্যে মৃত্যু কীভাবে হল তা নিয়ে চর্চা গোটা এলাকা জুড়ে। বাসিন্দাদের দাবি, শীতের ভোরে সেভাবে কোনও চিৎকারও শোনা যায়নি। একেবারে নিঃশব্দে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তারা। পরে দমকল তাদের ঝলসে যাওয়া মৃতদেহ উদ্ধার করে।

প্রাথমিকভাবে দমকলের ধারনা কালো ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছিল ঘরটি। এরপর বিষাক্ত ধোঁয়ার জেরে তাদের দমবন্ধ হয়ে যায়। ঘুমের মধ্যেই তাদের শ্বাসরোধ হয়ে যায়। এরপর সেখানেই আগুন গ্রাস করে তাদের শরীর।

Read also  কাঠমান্ডুর কুরশিতে ফের ফিরলেন 'প্রচণ্ড', এই নিয়ে তৃতীয়বার

 

Source link