Patishapta Pitha Recipe: এভাবে পাটিসাপটা বানালে প্যানে আটকে যাবে না, পাবেন মায়ের হাতের স্বাদ

বাঙালির ঘরে সবচেয়ে বেশি যে পিঠে খাওয়ার চল আছে তা হল পাটিসাপটা। তবে মা-দিদিমাদের হাতে খুব সহজে এই পিঠে তৈরি হলেও অনেকেই পাটিসাপটা বানাতে গিয়ে হিমশিম খান। বিশেষ করে অনেকেরই পাটিসাপটা প্যানের সঙ্গে আটকে যায়। এইভাবে বানালে আর আপনাকে সেই সমস্যায় পড়তে হবে না–

উপকরণ

সেদ্ধ চালের গুঁড়ো (১ কাপ), ময়দা (১/২ কাপ), সুজি (১/৪ কাপ), চিনি (৩/৪ কাপ), নুন (১/৪ চা চামচ), কোরানো গুড় (১ কাপ), সাদা তেল, গুঁড়ো দুধ (২ টেবিল চামচ), দুধ (দেড় কাপ+১ কাপ), কোরানো নারকেল (১টি)

পদ্ধতি

একটা বড় বাটি নিয়ে তাতে চালের গুঁড়ো, ময়দা, সুজি মিশিয়ে নিন। দিয়ে দিন চিনি। তারপর নুন দিয়ে আরও কিছুক্ষণ মিশিয়ে নিন। এরপর রুম টেম্পারেচারে থাকা দুধ ধীরে ধীরে মিশিয়ে ব্যাটার বানিয়ে নিন। খেয়াল রাখবেন যাতে ব্যাটারে কোথাও দলা পাকানো না থাকে। দেড় কাপ মতো দুধ লাগবে এই সময়। ব্যাটার তৈরি হয়ে গেলে তা ঢাকা দিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। 

এবার একটা প্যানে ১ কাপ দুধ দিন। দুধ গরম হয়ে এলে তার সঙ্গে ২ টেবিল চামচ গুঁড়ো দুধ মেশান। মনে রাখবেন গুঁড়ো দুধ মেশানোর সময় আঁচ কম রাখবেন। পুরোটা ভালোভাবে মিশে গেলে আরও কিছুক্ষণ নাড়িয়ে নিন। ঘন হয়ে গেলে আঁচ বন্ধ করে গুড় মেশান। গুড় ভালো করে মিশে গেলে গ্যাস ফের জ্বালিয়ে আঁচ কম রাখুন। এরপর গুড় মেশানো দুধ ফুটতে শুরু করলে দিয়ে দিন নারকেল। ভালো করে নাড়তে থাকুন। মাঝারি আঁচে ৫-৭ মিনিট নাড়লে দেখবেন তেল ছাড়তে শুরু করেছে। 

এবার ব্যাটারটা আরও একবার নেড়ে নিন। যদি মনে হয় ব্যাটার ঘন হয়ে গিয়েছে আরও একটু দুধ মিশিয়ে নিন। এবার গ্যাসে ফ্রাইং প্যান বসিয়ে গরম করে নিন। গরম হয়ে গেলে আঁচ কমিয়ে ব্যাটার হাতার সাহায্যে প্যানে দিয়ে ভালো করে ছড়িয়ে দিন। তারপর পুরটা হাতের মুঠোয় নিয়ে ভালো করে চেপে চেপে লম্বাটে আকার দিয়ে পাটিসাপটার একধারে বসান। তারপর স্প্যাটুলা বা খুন্তির সাহায্যে রোল করে নিন। 

Read also  Natural home remedies: গলা ব্যথা, সর্দি কাশি? এই গুঁড়ো আর বিশেষ পানীয়র যুগলবন্দিতেই ঝটপট সেরে উঠুন, কিছু টিপস

এভাবে বানালে দেখবেন আপনার পাটিসাপটা প্যানের সঙ্গে লেগে যাবে না।

Source link