চা দিয়ে শিঙাড়ার থেকেও গ্রানোলা বার পছন্দ ব্রিটিশদের, উঠে এল সমীক্ষায়

সন্ধ্যেবেলা চায়ের সঙ্গে এক আধটা তেলেভাজা না হলে বাঙালির বিকেলটা যেন জমে না। তা বলে ব্রিটেনেও একই দশা হবে, তা কে জানত! একটি নতুন সমীক্ষা বলছে সেই কথা।‌ ব্রিটেনের তরুণরা নাকি মিষ্টি খাবারের পরিবর্তে সুস্বাদু স্ন্যাকস বেছে নিচ্ছে! কেমন স্ন্যাকস থাকছে চায়ের পালের পাতে? নতুন সমীক্ষায় অনুযায়ী ব্রিটেনের কমবয়সীরা তাদের চায়ের সঙ্গে বেছে নিচ্ছে শিঙাড়ার মতো স্ন্যাকস!

ইউনাইটেড কিংডম টি অ্যান্ড ইনফিউশনস অ্যাসোসিয়েশন (ইউকেটিআইএ) ১০০০ জনের উপর একটি সমীক্ষা করে। সেই সমীক্ষা অনুযায়ী, ১৮ থেকে ২৯ বছর বয়সিদের চায়ের সঙ্গে পছন্দের স্ন্যাকস হল গ্রানোলা বার।

এরপর দ্বিতীয় স্থানে ছিল শিঙাড়া, সমীক্ষায় প্রায় আট শতাংশ যুবক চায়ের সঙ্গে সুস্বাদু স্ন্যাকস হিসেবে ভারতীয় সামোসা বেছে নিয়েছে। কিন্তু ৬৫ বছরের বেশি বয়সিরা কেউ তা করেননি।

ইউকেটিআইএ-র প্রধান শ্যারন হল ডেইলি টেলিগ্রাফকে বলেন, ‘আমি মনে করি গ্র্যানোলা বারগুলি বেশ ভারী খাবার, তাই হয়তো লোকেরা তাদের চায়ের সঙ্গে জলখাবার হিসেবে সেগুলি খান’। তাঁর কথায়, ‘তারা হয়তো একটু বেশি ভারী খাবার খুঁজছে। সামোসা একটি ভারী খাবার।‌ তাই এ ক্ষেত্রেও তা প্রযোজ্য।’

শ্যারনের কথায়, অল্পবয়সিরা সম্ভবত ‘বাদাম বা মশলাদার স্বাদ’ পছন্দ করে কারণ কয়েক বছর অন্তর বিশ্বজুড়ে ভ্রমণের সময় তাদের খাওয়া খাবারের স্মৃতির কথায় উঠে আসে সমীক্ষায়। মার্কেট রিসার্চ সংস্থা মিন্টেলের আরও একটি সমীক্ষায় দেখা যায়, যে সংখ্যক ১৬ থেকে ২৪ বছর বয়সিরা চায়ের সঙ্গে মিষ্টি বিস্কুট খেতে ভালোবাসেন, তা ৫৫ বছরের বেশি বয়সিদের সংখ্যার তুলনায় অর্ধেক। মিন্টেল গত বছরের অগস্ট থেকে অক্টোবরের মধ্যে প্রায় ২০০০ চা পানকারীদের সাক্ষাৎকার নেয়। সেখান থেকেই তৈরি হয় সতর্কবার্তা, ‘যদি তরুণ প্রজন্ম চায়ের সঙ্গে মিষ্টি বিস্কুট খাওয়ার অভ্যাস ধীরে ধীরে ছেড়ে দেয়, তাহলে এমন বিস্কুটের বিক্রিও তলানিতে নেমে আসবে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

Read also  The Price Of Parts Of Television And Mobile Has Been Reduced In New Budget | Budget 2023: নতুন বাজেটে টিভি প্যানেল, মোবাইলের যন্ত্রাংশের অন্তঃশুল্কে ছাড়

Source link