‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান বিতর্কে কড়া প্রতিক্রিয়া অভিষেকের, ‘দেউলিয়া হয়ে গেছে’, বললেন সাংসদ

#কলকাতা: হাওড়ায় পূর্বাঞ্চলীয় বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে লক্ষ্য করে ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দেওয়া নিয়ে এবার নিজের প্রতিক্রিয়া জানালেন তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়। তাঁর কটাক্ষ, “মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের মধ্যে হয়ত ওঁরা ঈশ্বরকে দেখতে পান। সেই কারণেই হয়ত জয় শ্রী রাম বলেছেন। আমি তাঁদের ধন্যবাদ জানাই, তাঁরা সেই শ্রদ্ধা, সেই সম্মান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিয়েছেন।”

আজ, ১ জানুয়ারি তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা দিবস। এদিনই তপসিয়া রোডে নতুন ভবনের ভূমিপুজো এবং শিলান্যাস অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল তৃণমূল। পুরনো ভবন ভাঙার কাজ শুরু হয়েছিল আগেই। নতুন ভবন তৈরির আনুষ্ঠানিক সূচনা হল আজ। আর সেই সূচনা হল তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের হাত ধরেই। পরে পুজো শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একাধিক বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন অভিষেক।

আরও পড়ুন: নতুন বছরে যাত্রাশুরু বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের, ট্রেন ১৮-এর বিশেষত্ব জানলে চমকে যাবেন!

আরও পড়ুন: কুয়াশায় বর্ষবরণ, বছরের প্রথম দিনেই বাড়ল তাপমাত্রা! আবহাওয়ার বড় আপডেট

হাওড়ার অনুষ্ঠানে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে দেখে ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দেওয়া নিয়ে তাঁর প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে এদিন অভিষেক বলেন, “কী বলব, এটা লজ্জা! ২০২১ সালের ২৩ জানুয়ারি ভিক্টোরিয়ায় সরকারি অনুষ্ঠানের ঘটনার পুরনাবৃত্তি দেখলাম এই গত পরশু। যাঁরা ভুল করেও শেখেন না, তাঁদের নির্বোধ ছাড়া আর কী-ই বা বলতে পারি।” এরপরে তৃণমূল সাংসদের মন্তব্য, “সরকারি মঞ্চে যাঁরা রাজনৈতিক স্লোগান ব্যবহার করেন, তাঁরা রাজনৈতিক ভাবে দেউলিয়া হয়ে গিয়েছেন। প্রতিবাদের ভাষা আমার জানা নেই। এই জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়ে বিজেপি গ্যাসের দাম কমাতে পারবে না। পেট্রোলের দামও কমবে না।”

গত ৩০ ডিসেম্বর, শুক্রবার হাওড়া থেকে সূচনা হয় বন্দেভারত এক্সপ্রেসের। জোকা-তারাতলা মেট্রো রুট-সহ আরও বেশ কয়েকটি প্রকল্পের শিলান্যাস ও উদ্বোধন ছিল ওইদিন। এই উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিরও পশ্চিমবঙ্গে আসার কথা ছিল। কিন্তু হঠাৎ মাতৃবিয়োগ হওয়ায় ভার্চুয়াল মাধ্যমেই সমস্ত প্রকল্পের সূচনা করেন তিনি।

Read also  FIFA World Cup 2022: ফুটবল বিশ্বকাপের 'রঙ' বাঙালির মিষ্টিতেও! মেসিদের জার্সির রঙের রসগোল্লা থেকে ল্যাংচা মিলছে এই দোকানে

ওইদিনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ও। অভিযোগ, তিনি অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছনো মাত্রই, তাঁকে দেখে ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি দিতে শুরু করেন সেখানে উপস্থিত কয়েকজন বিজেপি বিধায়ক। প্রতিবাদে, মূল অনুষ্ঠান মঞ্চে ওঠেননি মমতা। গোটা অনুষ্ঠান চলাকালীন মঞ্চের পাশেই একটি চেয়ারে বসে থাকতে দেখা যায় তাঁকে। রেলমন্ত্রী, রাজ্যপালও তাঁর সঙ্গে কথা বলেন। কিন্তু, মমতা মূল মঞ্চে ওঠেননি।

সূত্রের খবর, গোটা ঘটনায় ‘অখুশি’ বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। রাজ্য বিজেপি এই ঘটনার দায়ভার কাঁধে নিতে না চাইলেও, বিষয়টি নিয়ে যে দলীয় নেতৃত্ব খুব একটা খুশি নন, তা একপ্রকার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্য নেতৃত্বকে। অন্তত, তেমনটাই বিজেপির অন্দর সূত্রের খবর।

মনে করা হচ্ছে, মাতৃবিয়োগের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই কাজে যোগ দিয়ে মোদি যে ‘রাষ্ট্রের দায়িত্বের প্রতি অবিচল’ থাকার বার্তা দিতে চেয়েছিলেন, তা কয়েকজন বঙ্গ বিজেপি বিধায়কের স্লোগান-বিতর্কে অনেকটাই ঢাকা পড়ে গিয়েছে। উল্টে, গোটা সময়টা নজর বহাল থেকেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের উপরে।

ওইদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপিকে লক্ষ্য করে রবিবার অভিষেককে বলতে শোনা যায়, “রাজনৈতিক ভাবে লড়াই করুন। রাজনৈতিক ইস্যু নিয়ে লড়াই করুন। ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অপমান, হেনস্থা করা যাবে না।”

Published by:Satabdi Adhikary

First published:

Tags: Abhisek Banerjee, AITMC, Mamata Banerjee, TMC

Source link