কালনায় ফাঁদ পেতে ধরা হচ্ছে পরিযায়ী পাখিদের! সচেতনতা বাড়াতে প্রচারে পুরসভা – News18 Bangla

#বর্ধমান: পরিযায়ী পাখিদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে উদ্যোগী হল কালনা পুরসভা। এ বারেই প্রথম কালনার ছাড়িগঙ্গায় প্রচুর সংখ্যায় পরিযায়ী পাখি এসেছে। কিন্তু অনেকেই নানা ভাবে সেই পাখিদের মেরে ফেলার কাজে তৎপর বলে বন দফতর সূত্রে খবর মিলেছে। মানুষকে সচেতন করতে ছাড়িগঙ্গার আশপাশে ফ্লেক্স টাঙিয়ে বাসিন্দাদের সচেতন করতে প্রচার শুরু করলো কালনা পৌরসভা।

জানা গিয়েছে, শাড়ি গঙ্গায় ফাঁদ পাতা হচ্ছে। চোরাশিকারীদের পাতা ফাঁদে ধরা হচ্ছে কালনা ছাড়িগঙ্গার চড়ে আসা পরিযায়ী পাখিদের। আবার ঢিল ছুড়ে অনেকে পাখিদের বিরক্ত করছেন বলেও অভিযোগ। এই পরিযায়ী পাখিদের বিরক্ত করা বা মাংসের লোভে তাদের না মারার বার্তা দিতে  ছাড়িগঙ্গার আশপাশে ফ্লেক্স টাঙিয়ে প্রচার শুরু করেছে কালনা পুরসভা।

আরও পড়ুন: পিঠেপুলি উৎসবের আয়োজন কৃষ্ণনগরে, কী কী ধরনের পিঠে পাওয়া যাচ্ছে জেনে নিন

এ বারই প্রথম কালনা উপসংশোধনাগার সংলগ্ন ছাড়িগঙ্গায় প্রচুর পরিযায়ী পাখি এসেছে। বন দফতরের হিসাবে তিন হাজারেরও বেশি পাখি রয়েছে এই এলাকায়। তাদের দেখতে আনাগোনা শুরু হয়েছে পর্যটকদের। একই সঙ্গে পাখিদের বিরক্ত করা এবং ফাঁদ পেতে মেরে ফেলারও অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। এ দিন কালনা পুরসভার পক্ষ থেকে ফ্লেক্স টাঙিয়ে জানানো হয়, গঙ্গাবক্ষে পরিযায়ী পাখিরা এসেছে। তারা অতিথি। তাদের বিরক্ত করা যাবে না। মাইক বাজানো, শব্দবাজি ফাটানো, ঢিল ছুড়ে পাখিদের বিরক্ত করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। আইন অমান্য করলে জেল ও জরিমানা দুই হতেই পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

কালনা পুরসভার উপ পুরপ্রধান তপন পোড়েল বলেন, প্রচুর পরিযায়ী পাখি এসেছে ছাড়িগঙ্গায়। কাছাকাছি ক্লাবগুলির কাছে আমাদের আবেদন তারা জোরে মাইক বাজিয়ে পাখিদের বিরক্ত করবেন না।

বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, বছরের শেষ দিন বা বছরের প্রথম দিনে প্রচুর মানুষ গঙ্গা তীরবর্তী এলাকায় পিকনিক করতে আসেন। সেই পর্যটকদের মাধ্যমে যাতে পাখিদের কোনও ক্ষতি না হয় তা নিশ্চিত করতে পুরসভার কাছে আবেদন জানানো হয়েছিল। বন দফতরের পাশাপাশি পুরসভাও এ বিষয়ে প্রচার শুরু করেছে। স্থানীয় ক্লাবের সদস্যদেরও এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে আবেদন জানানো হয়েছে।

Tags: Kalna, Purba bardhaman

Source link