কাটোয়ায় জমে উঠেছে সবলা মেলা, দু’দিনেই তিন লক্ষ টাকার বিক্রিতে খুশি হস্তশিল্পীরা

#বর্ধমান:  সিল্কের শাড়ি কিংবা বাঁশের তৈরি নানান সৌখিন সামগ্রিক বিক্রি হচ্ছে দেদার। এবার কাটোয়া শহরে সবলা মেলায় মাত্র দু’ দিনেই ৩ লক্ষ টাকারও বেশি জিনিস বিক্রি হয়েছে। এবার বিক্রি রেকর্ড গড়বে বলে আশাবাদী জেলা প্রশাসন। পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধারা বলেন,আগের বছর কাটোয়াতে এই মেলায় ২৫ লক্ষ টাকার সামগ্রী বিক্রি হয়েছিল। সেটা ছিল রেকর্ড বিক্রি।এবার বিক্রি আরও অনেকটাই বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

কালনার মমতা কলোনির শিল্পীদের তৈরি বাঁশের ঝুড়ি দেদার বিক্রি হচ্ছে মেলায়। হস্তশিল্পীদের তৈরি নানা শিল্পদ্রব্যও বিক্রি হচ্ছে ভালোই।গ্রামের মহিলাদের কাঁথাস্টিচ, তাঁতশিল্পীদের তৈরি জামদানি সহ বিভিন্ন প্রকার সিল্কের শাড়ি, পোড়ামাটির শো-পিস, পাটের তৈরি রংবেরঙের শো-পিস, কাঠের তৈরি শিল্পকর্ম বিক্রি হচ্ছে মেলায়।এবার সবলা মেলায় মোট ৭২ টি স্টলে হস্তশিল্পীরা তাদের পসরা সাজিয়েছেন।

রাজ্যজুড়ে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের হাতে তৈরি শিল্পকর্মের জনপ্রিয়তা ধীরে ধীরে বাড়ছে। প্রশাসনের আধিকারিকরা বছরভর স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের কাজের গুণগত মান ও দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলা সহ বিভিন্ন জেলার হস্তশিল্পীদের জন্য জেলায় জেলায় সবলা মেলার আয়োজন করছে রাজ্য।

কাটোয়ার ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট তারাশঙ্কর ঘোষ জানান, মেলায় বিভিন্ন স্টল থেকে ভালো বিক্রি হয়েছে। বাঁশের তৈরি বিভিন্ন শিল্পকর্ম বিক্রিও ভালো হচ্ছে। দু’ দিনেই প্রায় তিনষলক্ষ টাকার বিক্রি হয়েছে। আশা করছি আগের বছরের রেকর্ড এবার ভাঙবে।

কাটোয়া কাশীরাম দাস বিদ্যায়তনের মাঠে ২৮ ডিসেম্বর থেকে ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট সাতদিন ধরে সবলা মেলা চলছে। প্রতিদিন নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।  কালনার জিউধারার মমতা কলোনি থেকে বাঁশের ঝুড়ি নির্মাতারাও তাঁদের পসরা সাজিয়েছেন।

বাঁশের শিল্পকর্ম বিক্রি করছেন বেশ কয়েকজন শিল্পী। বাঁশের তৈরি শোপিস ছাড়াও রয়েছে নানান আসবাব। তাঁরা বললেন, এবারে প্রথম দিন থেকেই অনেকে ভিড় করছেন  দু’ দিনে ভালোই বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে বছরে ছ’ টির বেশি মেলা পাচ্ছি আমরা। শিল্পীরা বলেন, বাঁশের শিল্পকর্ম বিক্রি করে এখন মাসে প্রায় ১৫-২০ হাজার টাকা আয় হচ্ছে।

Read also  রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য রাজ্যের মন্ত্রীর! আর তা ঘিরে দেশজুরে কার্যত প্রতিবাদের ঝড়। রাজ্যের মন্ত্রী অখিল গিরিকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবিতে রাজ্যেজুড়ে

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, পূর্ব বর্ধমান জেলার চারটি পুরসভা-সহ মোট ২৩টি ব্লক থেকে স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলি মেলায় মোট ৬২টির বেশি স্টল দিয়েছে। মেলার প্রথম দিনেই ১ লক্ষ ৭৩ হাজার টাকার জিনিসপত্র বিক্রি হয়েছে। দু’ দিনেই প্রায় তিন লক্ষ টাকা ছাড়িয়েছে বিক্রি। এখনও মেলার পাঁচদিন বাকি রয়েছে। প্রত্যেকেই আশা করছেন এবার মেলায় বিক্রি রেকর্ড ছুঁতে পারবে।

Published by:Rukmini Mazumder

First published:

Tags: Bardhaman

Source link